মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০৭:৩২ পূর্বাহ্ন

মহম্মদপুরে নৌকাবাইচ দেখতে নদীর দুই তীরে লাখো মানুষের ঢল

Reporter Name / ৪১৮ Time View
Update : রবিবার, ৫ নভেম্বর, ২০২৩

(মহম্মদপুর)মাগুরা প্রতিনিধি : ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনা- আনন্দ ,উল্লাশের মধ্য দিয়ে লাখো দর্শকের উপস্থিতিতে শনিবার বিকালে মহম্মদপুর উপজেলা সদরের পূর্বপাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া মধুমতি নদীতে আবহমান গ্রাম-বাংলার লোকজ ঐতিহ্যবাহী বিহারী লাল শিকদার নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মহম্মদপুর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা এ মেলার আয়োজন করে। মেলা কে ঘিরে মধুমতি নদীর এলাংখালি ঘাট এলাকা ও নদীর দুই ধারের প্রায় ৫ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে দোকান-পাট ও বাহারি পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসে স্টল। মেলা প্রাঙ্গণে তৈরি করা হয়েছে বিশাল আকৃতির মঞ্চ। পথে পথে শোভা পেয়েছে বাহারি তোরণ। বাৎসরিক এ নৌকাবাইচ উপভোগ করতে স্থানীয় বাড়ি বাড়িতে মেলার ৩-৪ দিন আগের থেকেই আসতে শুরু করেন জামাই জন সহ নানা ধরনের শত-শত আত্মিয় স্বজন । মেলা সাধারনত নির্ধারিত দিনের ৩-৪ দিন আগেই শেখ হাসিনা সেতুর নিচে ও আশেপাশে মিলে যায় এবং নৌকাবাইচ শেষ হলেও মেলা চলতে থাকে আরো ২-৩ দিন। সবে মিলে সপ্তাহব্যাপী চলতে থাকে গ্রামীন এ মেলা। মেলারদিন সকাল থেকেই শেখ হাসিনা সেতু সংলগ্ন মধুমতি নদীর পাদদেশে পার্শবর্তী যশোর, ঝিনাইদাহ, নড়াইল, ফরিদপুরসহ কয়েকটি জেলার বিভিন্ন শ্রেনির মানুষ ও এলাকার শিশু-কিশোর-কিশোরিসহ সকল বয়সী নারী-পুরুষ জমায়েত হতে থাকেন। তাদের উপস্থিতিতে এলাকায় সৃষ্টি হয় আনন্দঘণ ও উৎসব মূখর পরিবেশ। উপজেলা নির্বাহী অফিসার পলাশ মন্ডল এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে দুপুর ২ টার সময় বেলুন ও শান্তির প্রতিক কবুতর উড়িয়ে প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন সাবেক যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মাগুরা-২ আসনের সাংসদ সদস্য ড. শ্রী বীরেন শিকদার। উদ্বোধন শেষে এ মেলায় সময় উপস্থিত থেকে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মাগুরা-২ আসনের সংসদ সদস্য ড.শ্রী-বীরেন শিকদার এমপি, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন মাগুরা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবু নাসের বেগ , পুলিশ সুপার মোঃ মশিউদ্দৌলা রেজা, মহম্মদপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আবু আব্দুল্লাহেল কাফি, মধূখালি , আমিনুর রহমান কলেজের অধ্যক্ষ ও প্রেসক্লাব মহম্মদপুরের সভাপতি বিপ্লব রেজা বিকো মহম্মদপুর থানার ওসি মো: বোরহানউল ইসলাম এবং উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ মো: মিজানুর রহমান মিলন প্রমূখ। প্রতিযোগিতা শুরুর আগ মুহূর্তে মধুমতি নদীর দুই পাড়ে নামে কয়েক লক্ষ মানুষের ঢল। সংগীতের তাল-লয়ে দাঁড়িয়াদের ছন্দময় দাঁড় নিক্ষেপে নদীর জল ময়ূরপঙ্খির মতোই ঝিলমিল করে মধুমতির বুকে। উল্লাসে মেতে উঠে নদী পাড়ের আমুদে লাখো দর্শক। এ বাইচে অংশ নেয় নড়াইল, গোপালগঞ্জ, হরেকৃষ্ণপুর, লোহাগড়া, কামারখালীসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা ২৫ টি নৌকা। মেলার আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশের কয়েক স্তরের নিরাপত্তার পাশাপাশি রাখা হয় সহস্রাধিক স্বেচ্ছাসেবক কর্মী। সেই সাথে রাখা হয় ফায়ার সার্ভিসের দল। এবং অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে পুরো মেলা এলাকা গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়। বীরেন শিকদার অতিথিদের সাথে নৌকা বাইচ উপভোগ করেন। নৌকাবাইচে সাজ-গহনা গ্রুপে ১ ম স্থান অধিকার করেন কাশিয়ানীর রেজাউল শেখের নৌকা, ২ য় স্থান অধিকার করেন মহম্মদপুরের দিলীপ বলের নৌকা ও ৩য় স্থান অধিকার করেন মাদারীপুরের অমল সরকারের নৌকা অন্যদিকে কালাই গ্রুপে ১ ম স্থান অধিকার করেন কালিশংকরপুর কবির মোল্লার নৌকা, ২য় স্থান অধিকার করেন ঢুষরাইলের আতর মোল্লা নৌকা ও ৩ য় স্থান অধিকার করেন আলফাডাঙ্গার কালু ফকিরের নৌকা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর