মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১:৩২ অপরাহ্ন
শিরোনাম
বাংলাদেশকে হারিয়ে ইতিহাস গড়লো আফগানিস্তান দিনাজপুরের  ঐতিহাসিক মোগল সম্রাটের পরগনা ঘোড়াঘাটে ঘোড়াশালসহ দুর্গ বিলুপ্তির পথে ২০৫০ সালে একবিংশ শতাব্দীর অর্থেক পথ পাড়ি দেবে বিশ্ব শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠকে দু’দেশের সম্পর্ক গভীর হবে বলে আশাবাদী ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে শেখ হাসিনার আমন্ত্রণ নরেন্দ্র মোদিকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ প্রদান রাষ্ট্রপতির, আগামীকাল সন্ধ্যায় শপথ গ্রহণ শ্রীলংকাকে হারিয়ে বিশ্বকাপ শুরু বাংলাদেশের মোদির শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে নয়াদিল্লী গেলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইরানের অন্তবর্তী প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন মোহাম্মদ মোখবের রাইসি নিহত: ইরানী সংবাদ মাধ্যমের ঘোষণা

গোপালগঞ্জে বোরো উফশী ধান চাষাবাদে প্রণোদনার বীজ-সার পাচ্ছেন ৩০ হাজার কৃষক

Reporter Name / ১৮৮ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর, ২০২৩

গোপালগঞ্জ সংবাদদাতা : ২০২৩-২৪ অর্থ বছরে প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় রবি মৌসুমে জেলার ৫ উপজেলায় ১ লাখ ৫০ হাজার কেজি বোরো উফশী ধান বীজ, ৩ লাখ কেজি ডিএপি সার ও ৩ লাখ কেজি এমওপি সার ৩০ হাজার কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে।
এ কর্মসূচির আওতায় ১জন কৃষক (৩৩ শতাংশ) ১বিঘা জমি চাষাবাদের জন্য ৫ কেজি করে বোরো ধানের উফশী ধান বীজ, ১০ কেজি করে ডিএপি ও এমওপি সার পাবেন।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের গোপালগঞ্জ খামারবাড়ির উপ-পরিচালক আঃ কাদের সরদার এসব তথ্য জানিয়েছে।
ওই কর্মকর্তা বলেন, গোপালগঞ্জ সদর উপজেলায় ৬ হাজার কৃষকের মধ্যে বিতরণের জন্য ৩০ হাজার কেজি বোরো উফশী ধান বীজ, ৬০ হাজার কেজি ডিএপি ও ৬০ হাজার কেজি এমওপি সার বরাদ্দ পাওয়া গেছে। মুকসুদপুরে ৫ হাজার ৩০০ জন কৃষকের জন্য ২৬ হাজার ৫০০ কেজি বোরো উফশী ধান বীজ, ৫৩ হাজার কেজি ডিএপি ও ৫৩ হাজার কেজি এমওপি সার বরাদ্দ এসেছে।

কাশিয়ানী উপজেলায় ৫ হাজার ২০০ জন কৃষকের মধ্যে বিতরণের জন্য ২৬ হাজার কেজি বোরো উফশী ধান বীজ, ৫২ হাজার কেজি ডিএপি ও ৫২ হাজার কেজি এমওপি সার বরাদ্দ করেছে সরকার। কোটালীপাড়া উপজেলায় ৭ হাজার ৫০০ কৃষকের মধ্যে বিতরণের জন্য ৩৭ হাজার ৫০০ কেজি বোরো উফশী ধান বীজ, ৭৫ হাজার কেজি ডিএপি ও ৭৫ হাজার কেজি এমওপি সার বরাদ্দ পাওয়া গেছে। টুঙ্গিপাড়া উপজেলার ৬ হাজার কৃষকের জন্য ৩০ হাজার কেজি বোরো উফশী ধান বীজ, ৬০ হাজার কেজি ডিএপি ও ৬০ হাজার কেজি এমওপি সার বরাদ্দ মিলেছে। বোরো বীজতলা তৈরীর জন্য দ্রুত এসব ধান বীজ বিতরণ সম্পন্ন করা হচ্ছে বলেও জানান ওই কর্মকর্তা।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের গোপালগঞ্জ খামারবাড়ির অতিরিক্ত উপ-পরিচালক সঞ্জয় কুন্ডু বলেন, ১ লাখ ৫০ হাজার কেজি বোরো উফশী ধান বীজ দিয়ে ৩০ হাজার প্রান্তিক কৃষক ৩০ হাজার বিঘা জমিতে বোরো উফশী ধানের চাষাবাদ করবেন। এতে জেলায় বোরো উফশী ধানের চাষাবাদ বৃদ্ধি পাবে। সেই সাথে জেলায় বাড়বে বোরো ধানের উৎপাদন।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাফরোজা আক্তার বলেন, গোপালগঞ্জ সদর উপজেলায় ৬ হাজার কৃষকের জন্য ৩০ হাজার কেজি বোরো উফশী ধান বীজ, ৬০ হাজার কেজি ডিএপি ও ৬০ হাজার কেজি এমওপি সার বিতরণ করা হচ্ছে। এ ধান বীজ বিতরণের জন্য আমরা সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহসিন উদ্দীন ৭ দিন আগে বীজ বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেছেন। সদর উপজেলায় বোরো ধান বীজ ও সার বিতরণ অব্যাহত রয়েছে। দ্রুত আমরা এটি সম্পন্ন করব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর