মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০৭:১৯ পূর্বাহ্ন

সুইডেনকে ন্যাটোতে নিতে রাজি তুরস্ক

বিদেশ : / ১২০ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ২৫ জানুয়ারী, ২০২৪

টানা চার ঘণ্টার বেশি বিতর্কের পর ন্যাটোতে সুইডেনকে নিতে রাজি হয়েছেন তুরস্কের আইনপ্রণেতারা। ফলে সুইডেনের ন্যাটো সদস্য হওয়ার পথে আরেকটা বাধা দূর হলো। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান আর দিন কয়েকের মধ্যেই পার্লামেন্টের সিদ্ধান্তে সই করবেন বলে আশা করা হচ্ছে। তুরস্কের পার্লামেন্টে ২৮৭-৫৫ ভোটে এই প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে। এবার সুইডেনের সদস্যপদের বিষয়টি হাঙ্গেরি যদি অনুমোদন করে দেয়, তাহলে তারা ন্যাটোর সদস্য হতে পারবে। এরদোয়ান আগে সুইডেনের সদস্য হওয়ার বিষয়টি নিয়ে আপত্তি জানালেও পরে অবশ্য সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছেন তিনি। এখন আনুষ্ঠানিকভাবে সুইডেনের ন্যাটোর সদস্য হওয়ার অনুমোদনও দিতে চলেছেন। এদিকে তুরস্কের পার্লামেন্টে ভোটাভুটির পর সুইডেনের প্রধানমন্ত্রী উলফ ক্রিস্টারসন এক্স বার্তায় বলেছেন, সামরিক জোটভুক্ত হওয়ার পথে আরো একধাপ এগিয়ে গেল সুইডেন। তুরস্কের আগে অভিযোগ ছিল, সুইডেন কুর্দ সন্ত্রাসীগোষ্ঠীকে আশ্রয় দেয় এবং তাদের সমর্থন করে। ন্যাটো কুর্দ যোদ্ধাগোষ্ঠীটিকে সন্ত্রাসী বললেও সুইডেন নিজের দেশে তাদের সন্ত্রাসী বলে মনে করে না। এ ছাড়া সুইডেনে একাধিকবার পবিত্র কোরআন পোড়ানোর ঘটনা ঘটেছে। তুরস্ক এসব ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। এই দুই বিষয় নিয়ে তুরস্ক সুইডেনের অন্তর্ভুক্তি নিয়ে তীব্র আপত্তি জানিয়েছে। ন্যাটো অবশ্য তুরস্কের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছিল। সুইডেনের প্রধানমন্ত্রী ক্রিস্টারসন জানিয়েছেন, এটা খুবই ইতিবাচক পদক্ষেপ। তিনি এক্স-এ লিখেছেন, ‘আজ আমরা ন্যাটোর সদস্য হওয়ার ক্ষেত্রে আরো কাছাকাছি পৌঁছে গেলাম।’ ন্যাটো প্রধান জেনস স্টলটেনবার্গও তুরস্কের পার্লামেন্টের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, তিনি এখন হাঙ্গেরির দিকে তাকিয়ে আছেন। তারাও দ্রুত সুইডেনের ন্যাটোর সদস্য হওয়ার প্রস্তাব অনুমোদন করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেছেন। জার্মানির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তুরস্কের পার্লামেন্ট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও ঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছে। সরকারি মুখপাত্র বলেছেন, ফিনল্যান্ডের মতো সুইডেনও ন্যাটোর সদস্য হলে এই জোট আরো শক্তিশালী হবে। সুইডেনের ন্যাটো সদস্য হওয়ার ক্ষেত্রে বাকি প্রক্রিয়াও দ্রুত শেষ হবে বলে জার্মানির আশা। যুক্তরাষ্ট্রও এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে বলেছে, ‘আমরা তুরস্ককে ধন্যবাদ দিচ্ছি। সুইডেন যোগ দিলে এই জোট নিঃসন্দেহে আরো শক্তিশালী হবে।’ সুইডেন ও ফিনল্যান্ড ২০২২ সালে ন্যাটোর সদস্য হওয়ার জন্য আবেদন জানায়। রাশিয়া ইউক্রেন আক্রমণ করার পর তারা এই সিদ্ধান্ত নেয়। গত বছর এপ্রিলে ফিনল্যান্ড ন্যাটোতে যোগ দেয়। কিন্তু তুরস্ক ও হাঙ্গেরি অনুমোদন দিতে দেরি করায় সুইডেন এখন পর্যন্ত ন্যাটোর সদস্য হতে পারেনি। ন্যাটোর নিয়ম হলো, সব সদস্য দেশ অনুমোদন না দিলে নতুন কোনো দেশ এই জোটের সদস্য হতে পারে না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর