রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:০৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
যোগ্য নেতৃত্বের কারণে আবারও শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসেছেন : ব্রাজিলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী কুকি-চিনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া শুরু হয়েছে: আইজিপি বজ্রপাত ও কালবৈশাখী ঝড়ে নিহত বেড়ে ১৪ জন পার্বত্য চট্টগ্রামে স্বায়ত্তশাসিত পৃথক রাজ্য প্রতিষ্ঠার দাবি কেএনএফের কোনো অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীকে ছাড় দেওয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শঙ্কামুক্ত উত্তরের ঈদযাত্রা : খুলে দেওয়া হলো তিন ওভারপাস ও সেতু ৯-১৪ এপ্রিল বন্ধ থাকবে সংবাদপত্র গরমে হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি, দীর্ঘসময় রোদে না থাকার পরামর্শ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানবাহনের অতিরিক্ত চাপ, চলাচলে ধীরগতি শপথ নিয়েছেন নবনির্বাচিত দুই সিটি মেয়র

লটারির মাধ্যমে ১২১ কর্মচারীকে বদলি করল রাজউক

বিশেষ প্রতিবেদক : / ৪২ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ, ২০২৪

লটারি পদ্ধতির মাধ্যমে ১১টি পদের ১২১ জন কর্মচারীকে বদলি করেছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। লটারির মাধ্যমে বদলি করা হলে স্বচ্ছতা নিশ্চিতকরণ ও কাজের গতি বাড়ার সঙ্গে নগরবাসী আরও বেশি সেবা পাবেন বলে আশা করছেন রাজউক সংশ্লিষ্টরা।

বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) রাজউক ভবনের সভাকক্ষে লটারির মাধ্যমে ১১টি পদের ১২১ জন কর্মচারীকে বদলি করা হয়।

এ পদগুলো হলো, কানুনগো (গ্রেড-১০), ইমারত পরিদর্শক (গ্রেড-১০), হিসাবরক্ষক (গ্রেড-১১), নথিরক্ষণ কর্মকর্তা (গ্রেড-১২), নক্সাকার (গ্রেড-১২), উচ্চমান সহকারী (গ্রেড-১৪), সুপারভাইজার (গ্রেড-১৬), ডাটা এন্ট্রি অপারেটর (গ্রেড-১৬), কনিষ্ঠ হিসাব সহকারী (গ্রেড-১৬), অফিস সহকারী কাম-কম্পিউটার অপারেটর (গ্রেড-১৬) এবং নথিরক্ষক (গ্রেড-১৭)।

এ সময় রাজউক চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান মিঞা বলেন, পদায়ন বদলি ও অন্যান্য দাপ্তরিক কার্যক্রমের স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। এর অংশ হিসেবে লটারির মাধ্যমে বদলির এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। গত বছর থেকে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষে বিভিন্ন পদে নিয়োগ পাওয়াদের লটারির মাধ্যমে বিভিন্ন দপ্তরে পদায়ন করা হচ্ছে।

লটারি পদ্ধতিতে বদলি হওয়া কর্মচারীরা কোথাও কোনো তদবির না করেই স্বচ্ছতার সঙ্গে কর্মস্থলে যোগদান করবেন উল্লেখ করে রাজউক চেয়ারম্যান আরও বলেন, দাপ্তরিক কার্যক্রমে স্বচ্ছতা নিশ্চিতকরণের ওপর আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্বারোপ করছি, যাতে করে রাজউকের কর্মচারীরা নিরপেক্ষভাবে সেবামুখী মনোভাব নিয়ে কাজ করে নাগরিক সেবার মান বৃদ্ধিতে অবদান রাখতে পারেন। ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত, সমৃদ্ধ, স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে উন্নত নাগরিক সেবার কোনো বিকল্প নেই।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন রাজউকের সদস্য (প্রশাসন ও অর্থ) মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, সদস্য (এস্টেট ও ভূমি) মোহাম্মদ নূরুল ইসলাম, সদস্য (উন্নয়ন) মেজর ইঞ্জিনিয়ার সামসুদ্দীন আহমদ চৌধুরী (অব.) ও সদস্য (উন্নয়ন নিয়ন্ত্রণ) মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর